ইডেনের দুই ছাত্রীকে নির্যাতন- ছাত্রলীগ সভাপতির বিবস্ত্র করে ভিডিও ভাইরাল করার হুমকি


বন্ধন টিভি ডেস্ক
প্রকাশের সময় : আগস্ট ২৪, ২০২২, ৪:০০ অপরাহ্ণ / ১০১
ইডেনের দুই ছাত্রীকে নির্যাতন- ছাত্রলীগ সভাপতির বিবস্ত্র করে ভিডিও ভাইরাল করার হুমকি

ইডেনের দুই ছাত্রীকে নির্যাতন- ছাত্রলীগ সভাপতির বিবস্ত্র করে ভিডিও ভাইরাল করার হুমকি। ছাত্রলীগের কর্মসূচিতে অংশ না নেয়য় ছাত্রীদের হল থেকে বের করে দেয়ার হুমকির পর এবার দুই ছাত্রীকে বিবস্ত্র করে বিডিও ছড়িয়ে দেয়ার (ভাইরাল) হুমকি দিয়েছে ইডেন মহিলা কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি তামান্না জেসমিন ওরফে রীভা।

হুমকির বিষয়ে একটি অডিও রেকর্ড গত শুক্রবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে সমালোচনার মুখে ক্ষমাও চেয়েছিলেন তামান্না। ওই সেই অডিও ভাইরাল (ছড়িয়ে দেওয়া) করার বিষয়ে স্বীকারোক্তি আদায়ে দুই ছাত্রীকে মানসিক নির্যাতন করেছেন তিনি। নির্যাতনের একপর্যায়ে কথামতো স্বীকারোক্তি না দিলে তাদের বিবস্ত্র করে সেই ভিডিও অনলাইনে ভাইরাল করার হুমকি দেন ছাত্রলীগ নেত্রী।

অভিযোগের বিষয়ে ইডেন কলজে শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি তামান্না জেসমিনের বক্তব্য পাওয়া যায়নি। জানা গেছে, মঙ্গলবার ইডেন কলেজের রাজিয়া বেগম ছাত্রীনিবাসের একটি কক্ষে সাড়ে ছয় ঘণ্টা নির্যাতনের পর ওই দুই ছাত্রী তামান্নার কথামতো স্বীকারোক্তি দিতে বাধ্য হন৷

খবর পেয়ে ছাত্রীনিবাসটির প্রাধ্যক্ষ নারগিস রুমা ওই কক্ষে গিয়ে দুই ছাত্রীকে উদ্ধার করেন। উদ্ধারের পর ইডেন কলেজের শিক্ষক ও কলেজ শাখা ছাত্রলীগের কিছু নেতা-কর্মী ওই দুই ছাত্রীর মুখ থেকে ঘটনা শোনেন৷

ওই সময় একপর্যায়ে ভুক্তভোগী এক ছাত্রী বলেন, আগে যে অডিও ফাঁস হয়েছিল, তার ভিত্তিতে বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদ মিথ্যা বলে তাঁদের কাছে স্বীকারোক্তি চেয়েচেন তামান্না। তামান্না আরও স্বীকারোক্তি দাবি করেন, অডিও রেকর্ডটি তাঁরা (দুই ছাত্রী) কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সহসভাপতি সুমনা মীমের নির্দেশে করেছিলেন।

এসব স্বীকোরোক্তি না দিলে তাদের বিবস্ত্র করে সেই ভিডিও অনলাইনে ভাইরাল করে দেওয়ার হুমকি দেন তামান্না। তখন বাধ্য হয়েই তামান্নার লিখে দেওয়া স্বীকারোক্তিটি তারা পড়েন। তামান্না ও তার সহযোগীরা তা মুঠোফোনে ধারণ করেন।

ওই ছাত্রী আরও বলেন, ‘তামান্না জেসমিন তাদের বিভিন্ন রাজনৈতিক কর্মসূচিতে যেতে বাধ্য করেন। অসুস্থ থাকলেও ছাড় নেই। দীর্ঘদিন ধরেই এই নিপীড়ন চারিয়ে আসছে। সম্প্রতি প্রমাণ রাখার জন্য তারা হুমকি ও গালিগালাজের অডিও রেকর্ড করেন। কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সহসভাপতি সুমনা মীম তাকে এ ব্যাপারে কোনো নির্দেশনা বা পরামর্শ দেননি।’

আরও পড়ুন: ‘পিক-আওয়ার’ পরিবর্তনে বিদ্যুতের ‘ব্যালান্স’ ঠিক হচ্ছে – বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী

 

কথা বলতে বলতে ভুক্তভোগী অন্য ছাত্রী শিক্ষক ও ছাত্রলীগ নেত্রিদের সামনেই কান্নায় ভেঙে পড়েন। তিনি বলেন, ‘এই ভিডিও বাইরে চলে গেলে আমার নিরাপত্তা কে দেবে।’

এ বিষয়ে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সহসভাপতি সোহান খান বলেন, ‘নেতিবাচক কথোপকথনের জন্য তিনি (তামান্না) নিঃশর্ত ক্ষমাও চেয়েছিলেন। এরপরও ছাত্রীদের একটি কক্ষে নিয়ে স্বীকারোক্তি আদায়ের জন্য নির্যাতন করে বিবস্ত্র করার হুমকির একটি তথ্য সামনে এসেছে, এটি অত্যন্ত দুঃখজনক।

Spread the love
Link Copied !!