সড়ক দুর্ঘটনা: ‘গাঁজা খেয়ে গাড়ি চালাচ্ছিলেন চালক’


টি আই শাহীন
প্রকাশের সময় : সেপ্টেম্বর ৫, ২০২২, ১২:১৩ অপরাহ্ণ / ৭৭
সড়ক দুর্ঘটনা: ‘গাঁজা খেয়ে গাড়ি চালাচ্ছিলেন চালক’

রংপুরে যাত্রীবাহী দুই বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে ৯ জন নিহত হয়েছেন। তাদের মধ্যে পাঁচজন ঘটনাস্থলে এবং চারজন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন প্রায় ৩০ জন যাত্রী। এর মধ্যে ২৩ জন রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি আছেন।

রোববার রাত সাড়ে ১২টার দিকে জেলার তারাগঞ্জ উপজেলার রংপুর-দিনাজপুর মহাসড়কের খারুভাজ সেতুর কাছে এই সড়ক দুর্ঘটনা ঘটে। দুর্ঘটনা কবলিত বাস দুটি হলো- জোয়ানা পরিবহন এবং ইসলাম পরিবহন।

এ দুর্ঘটনায় জোয়ানা পরিবহনের চালক ও সহকারীকে দায়ি করেছেন যাত্রীরা। তারা বলেন, মাদক সেবন করে বেপরোয়া গাড়ি চালানোয় এ সড়ক দুর্ঘটনা ও হতাহতের ঘটনা ঘটে।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন জোয়ান পরিবহনের যাত্রী আমজাদ হোসেন বলেন, রংপুর মেডিক্যাল কলেজ মোড় থেকে বাস ছাড়তে রাত সাড়ে ১১টা বেজে যায়। সিট বাদেও বাসের ছাদে অনেক যাত্রী তোলেন সহকারী, সুপারভাইজার ও চালক। এরপর সহকারীর সঙ্গে গাঁজা সেবন করতে করতে বাস চালানো শুরু করেন চালক। এ সময় বাসের ভেতর গাঁজার ধোঁয়া ছড়িয়ে পড়লে কয়েকজন যাত্রী প্রতিবাদ করেন। কিন্তু কারও কথা না শুনে চালক দ্রুত গতিতে বাস চালিয়ে সৈয়দপুরের দিকে যাচ্ছিলেন। পথে মুষলধারে বৃষ্টি শুরু হলেও বাস চলছিল দ্রুত গতিতেই। অনেক অনুরোধ করলেও তারা কথা শোনেনি। এরপর হঠাৎ বিকট শব্দ হয়। আর কিছুই বলতে পারবো না। জ্ঞান ফেরার পর দেখি আমি হাসপাতালে।

তাদের দাবি, ‘গাঁজা সেবন করে বেপরোয়া গতিতে বাস না চালালে এত বড়ো দুর্ঘটনা ঘটতো না।’

জানা যায়, ওই দুর্ঘটনায় নিহত ৯ জনের মধ্যে ঘটনাস্থলেই পাঁচ জন মারা যান। চার জন রংপুর মেডিক্যালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। তাদের মধ্যে তিন জনের পরিচয় মিলেছে।

তারা হলেন- নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলা ছাত্রলীগের দপ্তর সম্পাদক অলিউর রহমান জুয়েল, জোয়ান পরিবহনের বাসচালক জীবন ও যাত্রী ধনঞ্জয় চন্দ্র।

(সংকলিত)

Spread the love
Link Copied !!