সাফারী পার্কের প্রাণী মৃত্যুর তদন্তে আরও ১০ দিন সময় চেয়েছে কমিটি


বন্ধন টিভি ডেস্ক
প্রকাশের সময় : ফেব্রুয়ারি ১০, ২০২২, ২:০৬ অপরাহ্ণ / ১৩৬
সাফারী পার্কের প্রাণী মৃত্যুর তদন্তে আরও ১০ দিন সময় চেয়েছে কমিটি

গাজীপুরঃ গাজীপুরের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারী পার্কে প্রাণী মিৃত্যু নিয়ে গঠিত তদন্ত কমিটি মন্ত্রণালয়ে ১০দিন সময় চেয়ে আবেদন করেছেন। পাশাপাশি কমিটির সকল সদস্য বুধবার দিনব্যাপী পার্কে ঘুরে তথ্য সংগ্রহ করেছেন। এসময় প্রাণী চিকিৎসায় বিশেষজ্ঞ মেডিক্যাল বোর্ডের সদস্যরাও ছিলেন।

তদন্ত কমিটির প্রধান বন পরিবেশ ও জলবায়ু পরিবর্তণ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব সঞ্জয় কুমার ভৌমিক এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, তদন্ত চলমান রয়েছে। প্রাণীদেহের নমুনা পরীক্ষার প্রতিবেদন সকল ল্যাব থেকে পাওয়া যায়নি। তদন্তের ধার্যকৃত সময় এখনও অতিক্রম হয়নি। তারপরও তদন্তের স্বার্থে এবং প্রয়োজনে ১০ কার্যদিবস বাড়ানোর জন্য মন্ত্রণালয়ে সময়ের আবেদন করা হয়েছে।

তিনি বলেন, আগেও পার্ক থেকে তথ্য সংগ্রহ করা হয়েছে। বুধবারও পার্কের বিভিন্ন কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কাছ থেকে তথ্য সংগ্রহ করা হয়েছে। তদন্ত কমিটির যারা আগে পার্ক পরিদর্শন করেননি তারা বুধবার পার্ক পরিদর্শন করেছেন এবং সংশ্লিষ্টদের সাথে কথা বলেছেন। তদন্ত কমিটি, প্রাণী বিশেষজ্ঞ মেডিক্যাল বোর্ডের সদস্য এবং পার্ক কর্মকর্তাগণ এদিন পার্কে একত্রে কথা বলেছেন।

পার্কের নবযোগদানকৃত প্রকল্প পরিচালক মোল্লা রেজাউল করিম বলেন, তদন্ত কমিটি ও প্রাণি চিকিৎসায় বিশেষজ্ঞ মেডিক্যাল বোর্ডের সদস্যরা বুধবার পার্কের বিভিন্ন স্পট ঘুরেছেন। তারা পার্ক থেকে নানা ধরণের নমুনাও সংগ্রহ করেছেন। বুধবার সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত তারা পার্কে এসব কাজে সময় কাটিয়েছেন।

প্রাণী বিশেষজ্ঞ মেডিক্যাল বোর্ডের সদস্যদের মধ্যে ছিলেন বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্জারী বিভাগের প্রফেসর ডা. মো. রফিকুল আলম, গাজীপুর জেলা প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা ডা. উকিল উদ্দিন, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্যাথলজি অনুষদের প্রফেসর ডা. মো. আবু হাদী নূর আলী খান, ফার্মাকোলজী বিভাগের প্রফেসর ডা. কাজী রফিকুল ইসলাম।

২৬ জানুয়ারি পরিবেশ বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব সঞ্জয় কুমার ভৌমিককে আহ্বায়ক এবং এবং পরিবেশ-২ শাখার উপসচিব মোহাম্মদ আব্দুল ওয়াদুদ চৌধুরীকে সদস্য-সচিব করে এ কমিটি গঠন করা হয়।

তদন্ত কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ মনিরুল হাসান খান, বন্যপ্রাণী ও প্রকৃতি সংরক্ষণ অঞ্চল, বন ভবন, ঢাকা এর বন সংরক্ষক এবং কেন্দ্রীয় পশু হাসপাতালের প্রাক্তন চিফ ভেটেরিনারি অফিসার ডা. এ বি এম শহীদুল্লাহ।

প্রসঙ্গত, চলতি বছরের ২ জানুয়ারী থেকে ৩ ফেব্রæয়ারী পর্যন্ত পার্কের ১১টি জেব্রা ,১টি বাঘ ও ১টি সিংহ মারা যায়। একসাথে এবং অল্প দিনে প্রাণীগুলোর মৃত্যু সকল মহলকে ভাবিয়ে তোলে। বন পরিবেশ ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয় এসব বিষয়ে প্রকৃত কারণ উদঘাটন করতে তদন্ত কমিটি গঠন ও বন অধিদপ্তর পার্কের তিন শীর্ষস্থানীয় কর্মকর্তাকে প্রত্যাহার করে অধিদপ্তরে সংযুক্ত করে।

Spread the love
Link Copied !!