যশোর আওয়ামী লীগের বিতর্কিত ৫ কমিটি স্থগিত


মালিকুজ্জামান কাকা, যশোর
প্রকাশের সময় : আগস্ট ৩, ২০২২, ৭:১৯ অপরাহ্ণ / ১২২
যশোর আওয়ামী লীগের বিতর্কিত ৫ কমিটি  স্থগিত

যশোর আওয়ামী লীগের বিতর্কিত ৫ কমিটি স্থগিত। সদ্য ঘোষিত যশোর শহরসহ কয়েক উপজেলা আওয়ামী লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি বাতিল করা হয়েছে। সেপ্টেম্বর মাসে দলের গঠনতন্ত্র অনুসরণ করে কমিটি গুলো ঘোষণা করা হবে। মঙ্গলবার আওয়ামী লীগের খুলনা বিভাগীয় দায়িত্ব প্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হকের ধানমন্ডির ব্যক্তিগত কার্যালয়ে এক সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

জেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক মুজিবুদ্দৌলা সরদার কনক স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। কমিটিগুলো হলো যশোর শহর, অভয়নগর, বাঘারপাড়া, মণিরামপুর ও ঝিকরগাছা উপজেলা। তবে বিবৃতিতে কমিটি গুলোর নাম না থাকলেও দলের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা শহিদুল ইসলাম মিলন তা নিশ্চিত করেছেন।

সভায় জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা শহিদুল ইসলাম মিলন, সাধারণ সম্পাদক শাহিন চাকলাদার এমপি, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্য, সংসদ সদস্য আলহাজ শেখ আফিল উদ্দিন, সংসদ সদস্য মেজর জেনারেল (অব) নাসির উদ্দিনসহ সংশ্লিস্ট উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকগণ উপস্থিত ছিলেন।

শহর ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনের মাধ্যমে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হলেও নানা সংকটের কারনে পূর্ণাঙ্গ কমিটির নাম ঘোষণা করা হয়নি। মাস খানেক আগে অনেকটা আকস্মিকভাবে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের অনুমোদন ছাড়াই ঘোষণা করা হয় যশোর শহর ও অভয়নগর উপজেলা আওয়ামী লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটির নাম। জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা শহিদুল ইসলাম মিলন ওই কমিটিকে অবৈধ বলে ঘোষনা করে বিবৃতিও দেন। বিষয়টি নিয়ে জনমনে এবং দলীয় নেতাকর্মির মাঝে বিভ্রান্তির সৃষ্টি হলেও কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব কোন ভুমিকা রাখেনি।

আরও পড়ুনঃ বেনাপোল দিয়ে ভারতে পণ্য রফতানি বৃদ্ধি

৩০ জুলাই সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলন অনেকটা এককভাবে বাঘারপাড়া, মণিরামপুর ও ঝিকরগাছা উপজেলা আওয়ামী লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটির অনুমোদন দেন। সংবাদটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকসহ স্থানীয় দৈনিক পত্রিকাতে প্রকাশ হলে সর্বমহলে বিরুপ প্রতিক্রিয়া
সৃস্টি হয়।

এসময় আওয়ামী লীগের খুলনা বিভাগীয় দায়িত্বপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের সাথে কথা বলে ঢাকায় তার অফিসে বসার আমন্ত্রন জানান। একপর্যায়ে মঙ্গলবার কমিটি ভেঙে দেয়ার সিদ্ধান্ত হয় সভা থেকে।

Spread the love
Link Copied !!