বদলগাছীতে স্বামীর নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে গৃহবধুর আত্মহত্যা


বন্ধন টিভি ডেস্ক
প্রকাশের সময় : আগস্ট ১৭, ২০২২, ৬:১৫ অপরাহ্ণ / ৪৮
বদলগাছীতে স্বামীর নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে গৃহবধুর আত্মহত্যা

বদলগাছীতে স্বামীর নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে গৃহবধুর আত্মহত্যা করেছে। নওগাঁর বদলগাছীতে স্বামীর নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে দুটি শিশু সন্তানকে রেখে এক গৃহবধু আত্মহত্যা করেছে। এ ঘটনায় জয়পুরহাট র‌্যাব-৫ কর্তৃক হাতুরি উদ্ধার সহ স্বামী সোবাহান (৩৫) কে আটক করে বদলগাছী থানা পুলিশের নিকট হস্তান্তর করে।

 

ঘটনাটি ঘটেছে বদলগাছী উপজেলার মথরাপুর ইউপির চক গোপিনাথ গ্রামে। নিহত ঐ গৃহবধুর বগুড়া সারিয়াকান্দি উপজেলার পালক পিতা আজিজুরের মেয়ে সাবিনা। আটককৃত বদলগাছীর মথরাপুর ইউপির চকগোপীনাথ গ্রামের মৃত. মোসলেম উদ্দিনের ছেলে সোবহান । থানা ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, প্রায় ৮ বছর আগে সাবিনার সাথে বিয়ে হয় সোবহানের।

তাঁদের ঘরে দুটি সন্তানও রয়েছে। সোমবার বিকেল ৫টায় সাবিনা তার দাদির অসুস্থতার কথা শুনে তাঁর বাড়ী যেতে চাইলে স্বামী সোবাহান তাঁকে টাকা দিতে চাননি। টাকা না দিয়ে তাঁর স্বামী সাবিনাকে বলে তোর দাদি মরে গেলে কি হবে বলে বিবিন্ন ভাষায় গালমন্দ করতে থাকে। গালমন্দর এক পর্যায়ে শাশুড়ি তার ছেলের কাছে বউ এর নামে অনেক উল্টাপাল্টা কথা বলে বাটাম ও হাতুরি দিয়ে মারাত্মক ভাবেেআহত করেন।

মারধর করার সময় পরিবারের কেউ বাধা দেয়ার জন্য এগিয়ে আসেনি। মারধরের যন্ত্রণা সহ্য করতে না পেরে সাবিনা বাজার থেকে বিষাক্ত গ্যাস ট্যাবলেট ক্রয় করে নিয়ে আসে এবং সেটি খেয়ে ফেলে বমি করতে থাকে। সাবিনার অবস্থা বেশি খরাপ হতে থাকলে তার স্বামী ও বাড়ির লোকজন তাঁকে জয়পুরহাট আধুনিক সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক রোগীকে বগুড়া জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করলে সঙ্গে সঙ্গে সেখানে নিয়ে ভর্তি করান। আনুমানিক রাত সাড়ে ১০টায় সাবিনার মৃত্যু হয়।

স্থানীয় প্রতিবেশীরা জানান, সোমবার হাটেরদিন থাকায় অনেক লোকজন এ ঘটনা দেখেছে। সোবাহানের ৫ভাই ও ভাবী আছে কিন্তু কেউ বাচানোর জন্য এগিয়ে আসেনি। প্রথমে বাটাম দিয়ে ও পরে হাতুরি দিয়ে প্রচন্ড ভাবে মেরেছে সাবিনাকে। আমরা বিভিন্ন সময় সাবিনাকে রক্ষা করতে গেলে তার স্বামী আমাদেরকেও মারার হুমকী দেন। তাঁরা আরো বলেন, বিয়ের পর থেকেই সাবিনা কে প্রচন্ড নির্যাতন করতো তার স্বামী।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কিছু ব্যক্তি বলেন, মারধরের পর সাবিনা ভ্যান যোগে পার্শবর্তী বাজার থেকে বিষাক্ত গ্যাস ট্যাবরেট ক্রয় করে নিয়ে আসে। ভ্যান চালক স্বামী সোবাহানকে বিষয়টি জানালে সোবাহান বলে মরুক মেরে ফেলার জন্যই তো মারছি।

আরও পড়ুন: সিরিজ বোমা হামলার ১৭ বছর পূর্তি আজ

এ বিষয়ে বদলগাছী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আতিয়ার রহমান বলেন, লাশটি বগুড়া জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আছে সেখানে ময়নাতদন্ত সম্পূর্ণ হয়েছে। এ বিষয়ে বগুড়া থানায় একটি ইউডি মামলা হয়েছে। নিহতের পরিবারের লোকজন কেউ থানায় অভিযোগ করলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Spread the love
Link Copied !!