কাজের আলোচনা–সমালোচনা দুটোই হবে : বর্ষণ


টি আই শাহীন
প্রকাশের সময় : সেপ্টেম্বর ১৯, ২০২২, ১০:৪৩ পূর্বাহ্ণ / ১০৩
কাজের আলোচনা–সমালোচনা দুটোই হবে : বর্ষণ

ভিডিও স্ট্রিমিং প্ল্যাটফর্ম চরকিতে মুক্তি পেয়েছে ওয়েব ফিল্ম ‘নিঃশ্বাস’। রায়হান রাফি পরিচালিত এই ছবির একটি গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করেছেন ইমতিয়াজ বর্ষণ। মুক্তির পর নিঃশ্বাস নিয়ে কেমন প্রতিক্রিয়া পাচ্ছেন জানতে গতকাল রোববার সন্ধ্যায় কথা হলো তাঁর সঙ্গে। জানালেন তাঁর নিজস্ব উপলব্ধি।

# টিজার প্রকাশের পর ‘নিঃশ্বাস’ নিয়ে দর্শকের আগ্রহ দেখা গেছে। মুক্তির পর সেই আগ্রহের কতটা পূরণ করতে পেরেছে বলে মনে করছেন?

মুক্তির পর মানুষের মধ্যে ব্যাপক আগ্রহ দেখেছি। টিজার সেই আগ্রহের জায়গা তৈরি করেছে। এই ছবি একধরনের নতুন অভিজ্ঞতা। আমাদের দেশের ওয়েবে এই ধরনের অ্যাকশন জনরার কাজ খুব একটা হয়নি। পরিচালক রায়হান রাফি ‘নিঃশ্বাস’ দিয়ে সেই চেষ্টা করেছে। এই ধরনের কাজ আমিও আগে করিনি। তবে একটা মুক্তিযুদ্ধের সিনেমা করেছি, সেটাতে অ্যাকশন ছিল ঠিকই, অবধারিতভাবে যুদ্ধক্ষেত্রও ছিল। এর বাইরে এই ধরনের কাজ এবারই প্রথম।

# অন্যদের মতো মুক্তির পর নিশ্চয় আপনিও ‘নিঃশ্বাস’ দেখেছেন। এই ওয়েব ফিল্মে আপনার কাছে কার অভিনয় তুলনামূলকভাবে ভালো লেগেছে?

আমি, পরিচালক রায়হান রাফি, অভিনয়শিল্পী তাসনিয়া ফারিণ, সাফা কবির, শাওন—আমরা একসঙ্গে দেখেছি। তাসনিয়া ফারিণ অসাধারণ অভিনয় করেছে। আমার কাছে সাফা কবিরের অভিনয়ও দারুণ লেগেছে। এর আগে ওর যে কয়টা কাজ দেখেছি, সেগুলোর চেয়ে এটাতে একেবারে আলাদা মনে হয়েছে। শাওনকেও এই ধরনের চরিত্রে আগে দেখেছি বলে মনে হয় না।

# রায়হান রাফির সঙ্গে এটা তো প্রথম কাজ। কাজের অভিজ্ঞতা কেমন ছিল?

রাফির ‘পরাণ’ দেখেছি। তারও আগে ‘পোড়ামন ২’ দেখেছি। এবার আমার কাজের অভিজ্ঞতা দারুণ। তাকে ভীষণ সাহসী একজন নির্মাতা মনে হয়েছে। ভবিষ্যতে আরও অনেক ভালো কাজ করবে মনে হয়েছে।

# নাটক, গান, চলচ্চিত্র মুক্তির পর এখন তো ফেসবুকেও নানা আলোচনা হয়। ‘নিঃশ্বাস’ নিয়ে সেখানে আলোচনা কেমন ছিল?

ইতিবাচক আলোচনা যেমন ছিল, তেমনি কিছু নেতিবাচকও ছিল। আমি মনে করি, একটা কাজের আলোচনা–সমালোচনা দুটোই হবে। সেই জায়গা থেকে আমি এটা মেনে নিয়েছি। গঠনমূলক সমালোচনা ভালো কাজ করার সহায়কও। কাজ হলে সেটার আলোচনা যেমন হবে, তেমনি সমালোচনাও হবে—এটা মেনে নিতেই হবে। আমি হয়তো এমন একটা বিষয় এড়িয়ে গেছি, যেটা সাধারণ দর্শকের চোখে ধরা পড়েছে।

# আপনি যে চরিত্রে অভিনয় করেছেন, সেটার প্রস্তুতি কেমন ছিল?

২০১৬-১৭ সালের দিকে যখন দেশের বিভিন্ন স্থানে খুব হামলা হচ্ছিল, এরপর যারা ধরা পড়ছিল, সবাইকে দেখেছি শিক্ষিত ঘরের। কেউ উচ্চবিত্ত, আবার কেউ মধ্যবিত্ত ঘরের সন্তান—ভালো ভালো বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাস করা। খুবই আশ্চর্যজনক ব্যাপার হচ্ছে, ওরা কীভাবে এ রকম হাইলি মোটিভেটেড হয়ে গেল। এই ঘটনাগুলো তো সামনে ছিলই। পরিচালকের বর্ণনাও শুনেছি ঠিকঠাকমতো। আমাদের নিয়মিত মহড়া হয়েছে, অস্ত্রের প্রশিক্ষণ হয়েছে অ্যাকশন ডিরেক্টরের অধীনে। সহশিল্পীদের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে। এই ধরনের কিছু চলচ্চিত্রও হয়েছে, সেগুলোও দেখেছি। এভাবেই নিজেকে তৈরি করেছি।

# নতুন কাজের খবর বলুন।

একটা কাজের সঙ্গে অতিসম্প্রতি যুক্ত হয়েছি, যদিও আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা হয়নি। এটুকু আভাস দিচ্ছে, এই পরিচালকের সঙ্গে আমার আরেকটি সুন্দর চলচ্চিত্রে কাজের অভিজ্ঞতা আছে। একই পরিচালকের সঙ্গে দ্বিতীয়বার কাজ করার মানে, হয়তো পরিচালকের আস্থা অর্জন করতে পেরেছি, বিশ্বাসযোগ্য হতে পেরেছি।

# টেলিভিশনের জন্য কাজ করছেন?

গল্প যখনই ভালো লাগে, তখনই টেলিভিশনের জন্য কাজ করি। নিয়মিত কিছু ভালো কাজ করতে চাই।

# ওয়েবে আপনার ব্যস্ততা দিন দিন বাড়ছে। কাজ বাছাইয়ের ক্ষেত্রে আপনি কোন দিকটা খেয়াল রাখেন?

শুরুতে গল্পটা দেখি। গল্পটা এই সময়ে আমাদের ইন্ডাস্ট্রির জন্য কতটা লাভবান, সেটা দেখি। তারপর তো পরিচালক প্রাধান্য পায়। পরিচালকদের সঙ্গে মিটিং করলেই অবশ্য বুঝে যাই তাদের উদ্দেশ্য, কীভাবে কাজ করতে চায়। যেহেতু এটা আমার পেশা, এরপর আমি পেশাদারভাবে চিন্তা করি।

# বড় পর্দায় নতুন কোনো ছবি মুক্তি পাচ্ছে কি?

৩০ ডিসেম্বর ‘ওরা ৭ জন’ মুক্তি পাবে। বাংলাদেশের স্বাধীনতার ৫০ বছর উপলক্ষে এই ছবি সেই ‘ওরা ১১ জন’কে ট্রিবিউট দেওয়া। যুদ্ধভিত্তিক চলচ্চিত্র ‘ওরা ১১ জন’ আমাদের আবেগ ও চেতনার সঙ্গে মিশে আছে। তাই সেই ধরনের ছবিকে ট্রিবিউট দেওয়ার জন্য তৈরি ‘ওরা ৭ জন’ ছবির অংশ হতে পারা আমার জন্য দারুণ একটা অভিজ্ঞতা। বড় পর্দায় এর আগে আমার অভিনীত চন্দ্রাবতী কথা মুক্তি পায়।

(সংকলিত)

 

Spread the love
Link Copied !!