সার্চ কমিটিতে ১০ জনের নাম দেবে আওয়ামী লীগ


বন্ধন টিভি ডেস্ক
প্রকাশের সময় : ফেব্রুয়ারি ১০, ২০২২, ১:২৩ অপরাহ্ণ / ৬৮
সার্চ কমিটিতে ১০ জনের নাম দেবে আওয়ামী লীগ

ঢাকাঃ সার্চ কমিটির কাছে বৃহস্পতিবার (১০ ফেব্রুয়ারি) প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও নির্বাচন কমিশনার হিসেবে ১০ জনের জমা দেবে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ। মঙ্গলবার (৮ ফেব্রুয়ারি) প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার সরকারি বাসভবন গণভবনে দলের সভাপতিমণ্ডলীর সভায় এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয় দলটি।

বৈঠকে উপস্থিত একাধিক নেতা বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। নেতারা বলেন, বিতর্কমুক্ত ও দলীয় পরিচয় নেই এমন ব্যক্তিদের মধ্য থেকে ১০ জনের নামের তালিকা তৈরি করা হবে। নামের তালিকা তৈরির ক্ষেত্রে ক্লিন ইমেজকে গুরুত্ব দেওয়া হবে।

জানা গেছে, সভায় উপস্থিত সদস্যদের কাছে প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও অন্যান্য কমিশনার কারা হতে পারেন এমন যোগ্যতা সম্পন্ন পছন্দের ব্যক্তিদের নাম চান দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনা। পরে দলীয় সভাপতির কথা মতো প্রত্যেক সভাপতিমণ্ডলীর সদস্যরা ৫ জনের নাম দেন।

সভায় উপস্থিত থাকা নেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, সিইসি হিসেবে জমা দেওয়া তালিকায় মোটামুটি তিনটি নাম কমন রয়েছে। তাদের মধ্যে দুইজন সরকারের মন্ত্রী পরিষদ বিভাগে সচিবের দায়িত্ব পালন করেছেন। এছাড়া একজন সচিব হিসেবে অবসর পাওয়ার পর একটি সাংবিধানিক পদের দায়িত্ব পালন করেছেন। অবশ্য দলীয় সভাপতির ইচ্ছা অনুযায়ী ওই বৈঠকে জমা দেওয়া নামগুলো নিয়ে আর আলোচনা করা হয়নি। আগামী বৃহস্পতিবার সার্চ কমিটির কাছে আওয়ামী লীগ তাদের পছন্দের ১০টি নাম  পাঠাবেন। সভায় সার্চ কমিটির কাছে নাম প্রস্তাব করার বিষয়টি ছাড়াও বিএনপির লবিস্ট নিয়োগ, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক কার্যক্রম জোরদার নিয়ে আলোচনা করা হয়।

সভায় সাংগঠনিক কার্যক্রম জোরদার করার নির্দেশ দেন আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। তিনি আগামী ২১ ফেব্রুয়ারির পর থেকে নিরবচ্ছিনভাবে সংগঠন শক্তিশালী করতে কাজ করতে বলেন। এ লক্ষে বিদ্যমান ৮টি টিমকে সফর শুরু করতে নির্দেশ দেন তিনি। যেসব জেলা-উপজেলায় সম্মেলন হয়নি সম্মেলন সম্পন্ন করার নির্দেশনা দেন।

সাংগঠনিক সফরে সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড তুলে ধরতে এবং বিএনপি-জামায়াতের ষড়যন্ত্রের কথা জনগণকে জানানোর জন্য নেতাদের নির্দেশনা দেন শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, বিএনপি গণতন্ত্র ও নির্বাচনে বিশ্বাস করে না এটা তুলে ধরতে হবে। এসময় জনগণকে স্মরণ করিয়ে বলতে হবে ২০০১ সালে বিনা রক্তপাতে ক্ষমতা হস্তান্তর করে আওয়ামী লীগ দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। আর বিএনপি ১৯৯৬ সালে ও ২০০৬ সালেও ক্ষমতা ছাড়তে চায়নি। ক্ষমতা আঁকড়ে থাকার সকল চেষ্টা করেছে। ওই দলের মুখে গণতন্ত্র ও নির্বাচন নিয়ে এত বড় বড় ছবক মানায় না।

নির্বাচন কমিশন গঠন আইন নিয়ে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা বলেন, পৃথিবীর কয়টি দেশে এমন আইন রয়েছে, সে সম্পর্কেও জনগণকে জানাতে হবে। বৈঠকে উপস্থিত নেতাদের আশ্বস্ত করে প্রধানমন্ত্রী আরও বলেছেন, সংগঠন ঐক্যবদ্ধ থাকলে, সরকারের উন্নয়নের প্রচার ও অপপ্রচারের বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগ সোচ্চার থাকলে আগামী নির্বাচনেও জিতবে আওয়ামী লীগ।

সভাপতিমণ্ডলীর ওই সভায় নবনিযুক্ত সভাপতিমণ্ডলীর তিন সদস্যও উপস্থিত ছিলেন। তারা হলেন—মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া, অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম ও এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটন।সভায় ওই তিন নেতা শেখ হাসিনাকে কৃতজ্ঞতা জানান।

Spread the love
Link Copied !!