গোপালগঞ্জে গ্রাম পুলিশের অভিযান দেশীয় প্রজাতির মাছ রক্ষার চেষ্টা


বন্ধন টিভি ডেস্ক
প্রকাশের সময় : আগস্ট ৫, ২০২২, ১২:১৯ অপরাহ্ণ / ৮৫
গোপালগঞ্জে গ্রাম পুলিশের অভিযান দেশীয় প্রজাতির মাছ রক্ষার চেষ্টা

জেলায় দেশীয় প্রজাতির মাছ ও জীব বৈচিত্র সংরক্ষণে চায়না ম্যাজিক জাল ধ্বংসে জলাশয়ে অভিযান শুরু করেছে গ্রাম পুলিশ ।

বৃহস্পতিবার সদর উপজেলার মাঝিগাতি ইউপি চেয়ারম্যান কেএম হাফিজুর রহমান মুকুলের নেতৃত্বে গ্রাম পুলিশ সদস্যরা ওই ইউনিয়নের বিভিন্ন জলাশয়ে অভিযান চালিয়ে ৫০টি চায়না ম্যাজিক জাল জব্দ করেন।

বিকেলে জব্দ করা এসব জাল আগুনে পুড়িয়ে ধ্বংস করা হয়।
এছাড়া হরিদাসপুর ইউনিয়ন ও নিজড়া ইউনিয়নে চায়না জাল জব্দে অভিযান পরিচালনা করেন গ্রাম পুলিশ সদস্যরা।

গোপালগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: মহসিন উদ্দিন উপজেলা আইন-শৃংখলা সভায় গত ২৮ জুলাই দেশীয় প্রজাতির মাছ ও জীব বৈচিত্র ধ্বংসের হাত থেকে রক্ষায় রেজুলেশন গ্রহন করেন।

সেখানে গ্রাম পুলিশকে এ ব্যাপারে অভিযান পরিচালনার দায়িত্ব দেন ওই কর্মকর্তা। এছাড়া এই অভিযানে তিনি ইউনিয়ন চেয়ারম্যনকে নেতৃত্ব দেওয়ার আহবান জানান।সেই অনুযায়ী বৃহস্পতিবার একযোগে ৩ ইউনিয়নে এই অভিযান শুরু করে গ্রাম পুলিশ।

গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার মাঝিগাতী ইউপি চেয়ারম্যান কে.এম হাফিজুর রহমান মুকুল বলেন, চায়না ম্যাজিক জালে মাছ, কুচে, ব্যাংঙ, সাপসহ বিভিন্ন জলজ প্রাণি উজার হয়ে যাচ্ছে। এগুলো সংরক্ষণে উপজেলা আইন-শৃংখলা কমিটির সভায় মৎস্য অধিদপ্তর ও চেয়ারম্যানদের পক্ষ থেকে দাবি জানানো হয়।

মাঝিগাতী ইউপির গ্রাম পুলিশের প্রধান মানু খান বলেন, আমরা আজ ৫০টি ম্যজিক জাল উদ্ধার করে ধ্বংস করেছি। ইউনিয়নের সরকারি কাজের পাশাপাশি ম্যাজিক জাল জব্দে অভিযান অব্যাহত থাকবে।

গোপালগঞ্জ জেলা মৎস্য কর্মকর্তা বিশ^জিৎ বৈরাগী বলেন, দেশীয় প্রজাতির মাছ ও জীববৈচিত্র রক্ষায় আমরা নিয়মিত ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করি। এই সম্পদ রক্ষায় গোপালগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: মহসিন উদ্দিন অভিনব উদ্যোগ গ্রহন করেছেন। এটি অব্যাহত থাকলে মৎস্য সম্পদ রক্ষা পাবে ।

আরও পড়ুন: সিদ্ধিরগঞ্জে তাঁতী লীগের অফিসে কাউন্সিলর মতি বাহিনীর তাণ্ডব, আহত ৫

এ ব্যাপারে গোপালগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: মহসিন উদ্দিন বলেন,আমাদের প্রয়োজনেই মৎস্য সম্পদ ও জীব বৈচিত্র রক্ষার কোন বিকল্প নেই। চায়না ম্যাজিক জাল মাছ ও জলজ প্রাণি ধ্বংস করছে।

এই ম্যাজিক জালের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করতে ইউপি চেয়ারম্যানের সমন্বয়ে গ্রাম পুলিশকে দায়িত্ব দিয়েছি। গ্রাম পুলিশ বৃহস্পতিবার ৩টি ইউনিয়নে এই অভিযান শুরু করেছে। মাঝিগাতীতে ৫০টি ম্যাজিক জাল জব্দ করে ধ্বংস করা হয়েছে। অন্য ২টি ইউনিয়নে অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে।

Spread the love
Link Copied !!